November 13, 2018
Breaking News
  • Home
  • INTERVIEW
  • গজল দুনিয়ার সম্রাজ্ঞী জেনিভা রায়
June 20, 2018

গজল দুনিয়ার সম্রাজ্ঞী জেনিভা রায়

By 1 542 Views

তিনি গজল গানের জগতে এক অপ্রতিদ্বন্দ্বী গায়িকা । তাকে গজল সম্রাজ্ঞী তকমাটা দেওয়া জেতেই পারে। যদিও তার শুরুটা হয়েছিল নায়িকা হিসাবে , তারপর ভালোবাসার টানে গানকে বেছে নেওয়া , বেছে নেওয়া গজল গানকে।তিনি জেনিভা রায়।জন্ম ও বড়ো হয়ে ওঠা বেলঘরিয়ায়।ওখানকারই বেলঘরিয়া যতিন দাস বিদ্যামন্দির থেকে স্কুলিং এর পর ভৈরব গাঙ্গুলি কলেজ থেকে স্নাতক হন।বাবা বাপী রায় ও মা শিখা রায় -দুজনেই গানের জগতের মানুষ। সেখান থেকেই অনুপ্রেরনা এবং মাত্র আট বছর বয়স থেকেই বাড়িতেই সংগীতের তালিমটা শুরু হয়েছিল।

 


জেনিভার প্রথম গানের তালিম মায়ের কাছে। মা তাকে ক্লাসিকাল গানের তালিম দেন । এর পর তিনি ক্লাসিকাল তালিম নেন উস্তাদ মসুর আলি খানের কাছে। তার গজলের প্রতি ভালোবাসা জন্মায় গজল শুনে।পরে ওম প্রকাশজির সঙ্গে বিভিন্ন জায়গায় স্টেজ শো করতে করতে গজলের প্রতি অনুরাগটা আরো বাড়ে । পরে তিনি বিভিন্ন জায়গায় গজলের তালিম নেন।স্কুলে পড়ার সময়ই তার প্রথম অ্যালবাম প্রকাশ পেয়েছিল। তারপর তিনি ‘সজনী’ বলে একটা বাংলা অ্যালবাম করেছিলেন -যেটা তখন বেশ জনপ্রিয় হয়েছিল। এরপর তিনি ‘তুমসে যো প্যার হোয়া’ বলে একটি ভোজপুরি অ্যালবাম করেন । এই সময়ই তার সঙ্গে পরিচয় হয় বিক্ষাত সঙ্গীত পরিচালক নৌসাদ আলির সঙ্গে। জেনিভা গজল গান শুনে উনি জেনিভাকে গজল গানের অ্যালবাম করার জন্য অনুপ্রানিত করেন ।এরপর ওনারই সুরে জমিন হায়দার সাদ-এর গীতরচনায় তার প্রথম গজল অ্যালবাম ‘আর্স ‘২০০৩ সালে প্রকাশিত হয়। গজলগুলো সম্পূর্ন উর্দুতেই ছিল।উর্দুকে আয়ত্ব করার জন্য তিন বছর ধরে তিনি উর্দু তালিম নিয়েছিলেন ।

 

 


এরপর তিনি পরপর গজলের অ্যালবাম করলেন । তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য-‘মেরে স্বপ্ন’, ‘অ্যায়সাস পেয়ার কা’ , ‘সচতে সচতে ‘।প্রত্যেকটি অ্যালবামই খুবই জনপ্রিয় হয় । তার ‘অ্যায়সাস পেয়ার কা ‘অ্যালবামটির অনুস্ঠানিক প্রকাশ করেছিলেন সুস্মিতা সেন।অ্যালবামটি ‘জিমা গ্লোবাল মিউজিক্যাল অ্যাওয়ার্ড’-এ নমিনেটেড হয়েছিল।সম্প্রতি তার ‘জুদায়ি’ নামে একটি ফার্সি ভাষায় অ্যালবাম প্রকাশিত হয়েছে মেলবর্নে।অ্যালবামটির মিউজিক করেছেন মহম্মদ সকিয়ার।তিনি মুম্বাই , দিল্লি ও কোলকাতাতে ‘ট্রিবিউট টু মেহেদি হাসান ‘করে সাড়া ফেলে দিয়েছিলেন ।ট্রিবিউট টু জগজিৎ সিং -তিনিই প্রথম কোলকাতাতে করেছিলেন। তারপর করেছিলেন দুবাই তে । গজল গানের ডালি নিয়ে তিনি পৃথিবীর প্রায় দেশেই গেছেন ।পাশাপাশি তিনি বহু ছবিতেও গান গেয়েছেন । জেনিভা শুধু গায়িকা নন একজন নায়িকাও। নায়িকা হিসাবে তার প্রথম ছবি ‘মালাবদল’।এই ছবিতে তার নায়ক ছিলেন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়। ছবির সবগুলো ফিমেল কন্ঠ তারই ছিল । এরপর তিনি একটি অসমীয়া ছবি ‘ত্যাগ’এ অভিনয় করেন ।তারপর ‘মারা তুকারে ময়না মেরু’ বলে একটি সাঁওতালি ছবি করে অবাক করে দিয়েছিলেন । এটি সিনেমা ইতিহাসে একটি উল্লেখযোগ্য ছবি । এরপর ‘এ শুধু আমার গান ‘ বলে একটা বাংলা মিউজিক্যাল ছবির নায়িকা ছিলেন ।

তিনি সম্প্রতি ‘খুসবু ‘ বলে একটি বাইলিঙ্গুয়াল ছবির কেন্দ্রিয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন। পরিচালক নেহাল দত্তর এই ছবিটিতে ইংরেজি, বাংলা , হিন্দি , উর্দু সহ বহু ভাষা ব্যাবহার হয়েছে । জাতি ধর্মের উর্ধে যে ভালোবাসা-এই বার্তাটাই ছবিতে রয়েছে । ছবিটির একটি বিশেষ ব্যাপার -নাচে লখনউ ঘরানাকে তুলে ধরা হয়েছে। এই ছবিতে তার সঙ্গে অভিনয় করেছেন বিখ্যাত অভিনেত্রী জারিনা ওয়াহাব । ছবিটি খুব শীঘ্রই মুক্তি পাবে। এহেন গজল শিল্পীর খুব শীঘ্রই ‘মুন্তাজির’ বলে একটি অ্যালবাম প্রকাশ পেতে চলেছে । অ্যালবামে মোট ছটি গান আছে ।একটি কাওয়ালি গানও আছে । এই প্রথম তিনি কাওয়ালি গাইলেন। ‘মুন্তাজির’ -এর গানগুলো লিখেছেন মুনাওয়ার রানা। সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন নৌশাদ আলি । সংগীতায়োজনে সুসেনজিত রায়।অ্যালবামটি মুম্বাই এর রেড এন্ড ইয়েলো কোম্পানি থেকে প্রকাশিত হবে। এর সাথেই জেনিভার আরেকটি অ্যালবাম ‘সানদিল’ প্রকাশিত হবে । এই অ্যালবামটিতে মোট আটটি গান থাকবে ।গানগুলো লিখেছেন মুনওয়ার রানা ও নবাব আরজু । অ্যালবামটিতে জেনিভার সঙ্গে গেয়েছেন রূপকুমার রাঠোর ও জাভেদ আলি ।শিল্পীর সাথে কথা বলে জানা গেলো তিনি একটি আরবি অ্যালবাম করার কাজ শুরু করেছেন। আরো জানা গেলো তিনি বাংলাতে একটি অ্যালবাম করবেন যেখানে চারটি গান থাকবে এবং গানগুলো হবে আফগানি স্ট্যাইলে।অ্যালবামটি বাংলার বুকে নতুন একটা ঝড় তুলবে বলে আশা করছেন শিল্পী । শিল্পীর আগামী কাজগুলোর জন্য শুভেচ্ছা জানাই ।

 

___রামিজ আলি আহমেদ

 

P.C : Bulan Ghosh

 
1 Comment
  • Raju paul 5 months ago

    Excellent interview & good physiotharaphy bulan … god bless you. .. best of luck all cine kolkatta staff. ..

     
Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *