September 22, 2018
Breaking News
  • Home
  • Tollywood News
  • শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন এর শিকার প্রিয়াঙ্কা সরকার
June 21, 2018

শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন এর শিকার প্রিয়াঙ্কা সরকার

By 1 347 Views

গত ২০১৬-র প্রথম থেকেই আলাদা আছেন প্রিয়াঙ্কা এবং রাহুল আপনারা সবাই জানেন।কারণ ২০১৬ থেকে প্রিয়াঙ্কাকে রাহুল আলাদা থাকতে বাধ্য করে, ঘর থেকে বের করে দেবার মতো পরিস্থিতি তৈরী হয়। যেখানে রাহুলই প্রিয়াঙ্কাকে বাধ্য করে Mutualy Divorce -এর জন্য। আলাদা থাকতে বাধ্য করার পর ২০১৬ থেকেই প্রিয়াঙ্কা এবং সহজের কোনো দায়িত্ব নেয়না রাহুল, প্রিয়াঙ্কার বার বার অনুরোধ করা সত্ত্বেও। কিন্তু বর্তমানে কিছুদিন আগে রাহুল ফোন এ প্রিয়াঙ্কাকে জানায় “তার সহজ চাই না।” যার রেকর্ডও আছে প্রিয়াঙ্কার কাছে। গতবছর হাইস্কুল এ সহজ-এর ভর্তির সময়েও রাহুল বলে ভর্তির সব খরচ দুজনমিলেই দেবে কিন্তু ভর্তির ঠিক কিছুদিন আগে রাহুল পিছিয়ে আসে এবং প্রিয়াঙ্কা কে বলে “প্রিয়াঙ্কা আমি পারবোনা, তুমি দেখে নাও।” তাই অনেক আশা সত্ত্বেও প্রিয়াঙ্কাকে পিছিয়ে আসতে হয় স্কুলে ভর্তি করানোর থেকে।

 

শুধু তাই নয়, কিছুদিন আগে রাহুল, প্রিয়াঙ্কার বাড়ি গিয়ে সহজকে নানাভাবে ভুল বোঝায় যে- “তুমি মায়ের সঙ্গে থেকোনা মা তোমাকে ভালোবাসতে পারবেনা।” ইত্যাদি নানারকম ভাবে। এসব শুনে সহজ ডিপ্রেশন-এও চলে যায় এবং একদিন স্কুল থেকে হঠাৎ ফোন আসে প্রিয়াঙ্কার কাছে যে সহজ কান্নাকাটি করছে ওকে স্কুল থেকে বাড়ি নিয়ে যান এবং সেই পরিপ্রেক্ষিতেই প্রিয়াঙ্কা জানতে পারে যে বাবা তাকে কিভাবে ভুল বুঝিয়েছে।

প্রিয়াঙ্কা একাই সহজ-এর সমস্ত খরচ বহন করতে থাকে সেই ২০১৬ থেকে। তাই অনেকভাবে প্রিয়াঙ্কা রাহুলকে বোঝায় যে- তাদের কিছু দায়িত্ব যেন রাহুল নেয়।” রাহুল দিচ্ছি দেব করে ঘোরাতে থাকে এবং আল্টিমেটালি সে নিজের সন্তানের অস্তিত্বও অস্বীকার করে কিছুদিন আগে এই বলে যে তার সহজের দরকার নেই।

এটা সত্যিই প্রিয়াঙ্কা ভাবতে পারেনি যে রাহুল এইরূপ ব্যবহার করে প্রিয়াঙ্কার বিশ্বাসভঙ্গ করবে। তাই ও না চাইলেও আজ সব কিছু মিডিয়াকে জানাতে বাধ্য হচ্ছে কিভাবে দিনের পর দিন বিশ্বাসভঙ্গ করেছে রাহুল, কারণ পুরো ব্যাপারটা এবার সকলের জানা উচিত-

প্রথমত তাদের বিয়ের পর থেকেই শারীরিক এবং মানসিক নির্যাতনের শিকার হয় প্রিয়াঙ্কা। বিয়ের পর রাহুলের ব্যবহারই এমন ছিল যে প্রিয়াঙ্কাকে চলতে হবে রাহুলের পছন্দমতো। তাকে থাকতে হবে রাহুলের ছত্রছায়ায়। রাহুল কোনোদিন বুঝতেও চায়নি শুধুমাত্র তাকে ভালোবাসতো বলেই প্রিয়াঙ্কা তার বাবা মা কে ছেড়ে রাহুলের সাথে থাকতো। সে প্রিয়াঙ্কার কোনো পছন্দকেই কোনো গুরুত্ব দিতোনা সে।তার বাইরে যাওয়া বন্ধ করেছিল সে এবং প্রিয়াঙ্কাকে শারীরিক নির্যাতন করতেও দ্বিধা করতোনা সে। দিনের পর দিন এই নির্যাতন বাড়ছিলোও।

তবুও সন্তানের মুখ চেয়ে সহ্যও করছিলো সবকিছু প্রিয়াঙ্কা। কারণ তার দৃঢ় বিশ্বাস ছিল রাহুল একদিন ঠিক বদলে যাবে তার জন্য না হোক কিন্তু তাদের সন্তানের জন্য। কিন্তু না উল্টে নির্যাতন বাড়তে থাকে আর রাহুলও অনেক বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে যায় যেগুলোর কথা প্রিয়াঙ্কা জানতে পারে অনেক পরে। যদিও সে প্রথমে বিশ্বাস করতে চায়নি, কিন্তু পরে সে সেগুলোর অস্তিত্ব উপলব্ধি করতে পারে।

তবুও প্রিয়াঙ্কা তার সন্তানের জন্য মিডিয়ার সামনে এসব কথা আনেনা কারণ তার মনে হয়েছিল ভবিষ্যতে ছেলের ওপর মানসিক চাপ পড়তে পারে। কিন্তু সমস্ত ঘটনা পর্যালোচনা করলে দেখা যায় রাহুল শুরু থেকেই প্রিয়াঙ্কার বিশ্বাসভঙ্গ করে এবং Mutual Divorce -এ বাধ্য করিয়ে সে বাবার দায়িত্ব থেকেও সরে আসে এবং রাহুল মনে করে প্রিয়াঙ্কা কাউকে কিছু না জানিয়ে মুখ বুজে সব সহ্য করে নেবে!!

কাজেই আর কোনো পথ খোলা না দেখতে পেয়েই প্রিয়াঙ্কা কিছুদিন আগে রাহুলের নামে-
১) বিশ্বাসভঙ্গ
২) শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন (Protection of women from domestic violence act 2005 ) এবং
৩) খোরপোষ-এর মামলা দায়ের করতে বাধ্য হয়।

 

যদিও এই মামলা দায়ের করার আগে প্রিয়াঙ্কা অনেকবারই সে রাহুলের সাথে বসতে চায় যাতে আর কিছু না হোক সে যেন সন্তানের এবং তার যেটুকু দায়িত্ব নেওয়া দরকার সেটুকু যেন সে নেয়। কিন্তু যখন সে দেখে রাহুল সবকিছু থেকেই পিছিয়ে আসে তাই প্রিয়াঙ্কা এই মামলার পথটি নিতে বাধ্য হয়। কারণ, রাহুল তার আর্থিক বিলাসিতা এবং বিলাসবহুল জীবন চালাতেই থাকে। রাহুলের এই মানসিকতা কোনো ভাবেই মেনে নেওয়া যায়না এবং আইনি পথেই এর একটা বিহিত হওয়া প্রয়োজন। আর একা মায়ের এই লড়াইয়ে প্রিয়াঙ্কা এখন সকলকেই তার পাশে থাকার অনুরোধ করছেন।

 

P.c : Bulan Ghosh

 
1 Comment
  • Arijit dey 3 months ago

    Photos gulo puro faltu click kora Cha r gandu chodar moto ai media r name Nia hotel a hotel a khay baray ai jono Bharat mitra thka taria Dia cha babohar atonto kharap r choratiro nongra ai portel ti jar ami taka bolchi valo kono ku K rakhun ja iso r mining e jana na sa abar photo graphar Bulan Ghosh nija K onk hubba mona Kora apnar portal ar sayman bacha Ta chila OK taran

     
Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *